ভাইরাল জ্বর হলে করনীয়

Written by: moonlight


About : This author may not interusted to share anything with others

12 months ago | Date : September 27, 2016 | Category : ভাইরাসজনিত রোগ,হেলথ টিপস | Comment : Leave a reply |

viral-feverবর্তমানে প্রায় প্রতিটি ঘরে ঘরে জ্বর কাশ সর্দি লেগেই থাকে। অনেক ঘরের শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে নিউমোনিয়ায়। এসব রোগে আক্রান্তদের মধ্যে শিশু কিশোরই বেশি। এই সব রোগের আক্রমনে রোগীরা দিনের পর দিন ভোগে। অথচ সামান্য সেবা ও ঔষধে এই সব রোগ সেরে যায়। অনেকের ধারনা জ্বর এক সপ্তাহের বেশি হলে তা ভাইরাল জ্বর। এটা হয়ত শ্বাস-প্রশ্বাসের সংক্রমন হতে পারে। শুধু তাই নয় ভাইরাল জ্বরের প্রধান লক্ষন হচ্ছে চোখ লাল হয়ে যায়,শরীরের পেশিতে প্রচন্ড ব্যথা হয় সাথে নাক দিয়ে পানি পরা ইত্যাদি হতে পারে। তাই এই সব লক্ষন দেখা দিলে যত তারাতারি সম্ভাব ডাক্তারে কাছে নিয়ে যাওয়া।
ডাক্তারের পরামর্শ অনু্যায়ী যে কোন এন্টিবায়োটিক নেওয়া যেতে পারে।জ্বর যদি ১০১ ডিগ্রি ফারেনহাইট এর বেশি হয় তাহলে এন্টিবায়োটিকের সাথে প্যারাসিটামল দিনে তিন বার (খাওয়ার পর) দেওয়া যেতে পারে। সর্দি কাশির জন্য সকালে ও রাতে খাওয়ার জন্য এন্টি-হিস্টামিন দেওয়া যেতে পারে। মনে রাখা উচিৎ ঔষধ সেবনের ৩-৫ দিনের মধ্যে যদি জ্বর না সারে তাহলে রক্ত পরিক্ষা করে ঔষধ সেবন করা উচিৎ। এই অবস্থায় রক্তের সিবিসি, রক্তের ভিডাল টেস্ট, রক্তের কালচার অথবা ইউরিন টেষ্ট করা উচিৎ। এই সব পরিক্ষার মাধ্যমে টাইফয়েড, ডেঙ্গু জ্বর অথবা ইউরিনের প্রদাহ হলে ধরা পরে। তখন দীর্ঘ সময় কস্ট ভোগ করতে হয়। এমনতাই অবস্থায় চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া অত্যান্ত জরুরি।

লিখাটি আপনার কালেকশানে রাখার জন্য আপনার ফেজবুকে শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


↑ Top